bangladesh
ads

পাকিস্তানে তিনটি বোমা বিস্ফোরণে নিহত ৫৪

[ ctgreportbd | on June 24, 2017]

এদের মধ্যে কুররাম উপত্যকার পারাচিনার শহরেই অধিকাংশ মানুষ নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে দ্য ডন।

ডনের প্রতিবেদনে বলা হয়, শুক্রবার পারচিনারে একটি বোমা বিস্ফোরণের পর উদ্ধার কাজ চলার সময় আরেকটি বিস্ফোরণ ঘটানো হলে মোট ৪১ জন নিহত ও ১০০ জন আহত হয়।

কোনো পক্ষ এই হামলার দায় স্বীকার না করলেও কোয়েটায় পুলিশ দপ্তরের সামনে চালানো আত্মঘাতী গাড়িবোমা হামলায় দায় স্বীকার করেছে দুটি পক্ষ, এদের মধ্যে একটি পাকিস্তান তালেবানের দলছুট অংশ জামাত উল আহরার এবং অপরটি ইসলামিক স্টেট (আইএস) ।

পারাচিনারের ঘটনার এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, প্রথম বিস্ফোরণটি ঘটেছে তুরি মার্কেটে, ওই সময় মার্কেটটিতে লোকজন ঈদের কেনাকাটায় ব্যস্ত ছিল। এর কয়েক মিনিট আগে ঘটনাস্থলের কাছে আল কুদস দিবসের একটি মিছিল এসে শেষ হয়েছিল।

বিস্ফোরণে আহত মুহাম্মদ হুসেইন জানান, আল কুদস দিবসের মিছিলটি শেষ হওয়ার পর তিনি নিজের পোল্ট্রি দোকানের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন, তখন প্র্রথম বিস্ফোরণটি ঘটে। এতে আহত হওয়া লোকজনকে সাহায্য করতে অনেক লোক এগিয়ে এলে দ্বিতীয় বিস্ফোরণটি ঘটানো হয়।

“দ্বিতীয় বিস্ফোরণের পর আমি জ্ঞান হারিয়ে ফেলি, পরে নিজেকে হাসপাতালের বিছানায় দেখতে পাই,” বলেন তিনি।

স্থানীয় প্রশাসনের নির্বাচিত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ জানিয়েছেন, দুটি বিস্ফোরণে ৪১ জন নিহত ও প্রায় ১০০ জন আহত হয়েছে।

আফগানিস্তানের সীমান্তবর্তী শহরটিতে চালানো এই জোড়া বিস্ফোরণ দুটি আত্মঘাতী ছিল কি না তাৎক্ষণিভাবে তা পরিষ্কার হওয়া যায়নি।

এই জোড়া হামলা নিয়ে চলতি বছর পারাচিনারে মোট তিনটি বড় ধরনের বোমা হামলা চালানো হল।

পারাচিনার হামলার আগে ওই দিন সকালে বেলুচিস্তান প্রদেশের রাজধানী কোয়েটায় প্রাদেশিক পুলিশের মহাপরিদর্শকের দপ্তরের সামনে এক আত্মঘাতী গাড়িবোমা বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

এতে সাত পুলিশ ও জামিয়াত উলেমা ই ইসলাম (নাজারিয়াতি) দলের এক নেতাসহ মোট ১৩ জন নিহত ও অপর ২৪ জন আহত হয়।

আহতদের মধ্যে নয় পুলিশ সদস্য, চার সেনা সদস্য, এক বালিকা ও এক নারী রয়েছে বলে জানিয়েছে কোয়েটা সরকারি হাসপাতালের মুখপাত্র ওয়াসিম বেগ। আহতদের মধ্যে অন্তত পাঁচজনের অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *